Ultra Protagonist's World

প্রারম্ভিক

জলছবি (৮)

পাঁচিলের ওপরে হাতদুটোকে এমন ভাবে পেতে তার ওপরে মাথা রেখে ঘুমিয়ে ছিল স্পন্দন , ঠিক যেন প্রাপ্তবয়স্ক চিতাবাঘের ছুবনি,ভরপেট মধ্যাহ্ন ভোজনের পরে । নাকে বৃষ্টির ফোঁটা এসে পড়তেই সাধের ঘুম বিলোপ পেল । সোঁদা গন্ধের সাথে রীতিমতো প্রতিযোগিতায় নেমে নাকে এসে যে গন্ধটা প্রথমে ধাক্কা মারল তা রাস্তার উল্টো দিকের পলিথিনের ত্রিপল খাটানো দোকান থেকে , সরু কাঠি দিয়ে যত্ন করে গোবিন্দ দা-র কড়াইয়ের দেয়াল জুড়ে ছড়িয়ে দেওয়া পাতলা সর, অচিরেই যা রাবড়ি হবে ।সদ্যযৌবনা সোমত্ত বাঘিনী -র গন্ধ যেমন দেখতে বেশ হাসি হাসি মুখ হাঁ করে ও জিভ বাড়িয়ে মেপে নেয় শরতের বাঘ , স্পন্দন সেভাবেই চিনে নিল রাবড়ি-র ফেরোমোন । এক অনুকূল বা প্রতিকূল আবহাওয়ায় ।

Advertisements

About Anand Sehgal

A graduate researcher, A writer, A poet, A singer, A composer,An actor..............An artist by heart

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

Information

This entry was posted on June 13, 2016 by in রম্যরচনা, সমকাল and tagged , .
%d bloggers like this: