Ultra Protagonist's World

প্রারম্ভিক

কালস্কেপ (৮ম)

আজকে চাঁদ বেধড়ক ভালো দেখা দিয়েছে । পূর্ণস্বাস্থ্য তার । নির্মল, ডেঙ্গুহীন , ম্যালেরিয়ামুক্ত । চাঁদকে দেখে পৃথিবীর ঝটিতি এমন কথা মনে হবে , এও কি ভেবেছিল পৃথিবী বা চাঁদের কেউই ? এ কথা আসলে একদিকে নিজের ভাগ্যকে ধন্যবাদ দেওয়া অথবা হতাশা, অব্যবস্থা, অপারগতায় আর নিখাদ যন্ত্রণায় দীর্ণ হতে হতে হিংসার সাময়িক উদ্গীরণ – ‘ও কেন এমন সুন্দর হল? ‘ ইত্যাদি । এমন রাতে ঘরে বাইরে সব আলো বন্ধ হবার পরে ; রাত থিতু, গাঢ় হলে মায়াবী সিল্যুয়েটে প্রহরী কুকুরদের দেখে থেকে থেকেই নেকড়ের পাল ঠাহর হয় । অন্ধকারের আভিধানিক সমার্থক শব্দ “আদিম” কখনোই নয়। কোনও অভিধানে নেইও তেমনটা । কিন্তু ব্যবহারিক অর্থ?
কতবার মনে ভেবেছি যে মাটিতে শরীর মিশিয়ে, রোজকার জুতো -থাবা- চাকায় ঘষটে যাওয়া ক্ষয়ে যাওয়া ব্যাসালট পাথরে বুক ঠেকিয়ে, ছুবনি পাতা সারমেয়ের শ্বাদন্তের ফাঁক দিয়ে চাঁদের ঔজ্জ্বল্য প্রত্যক্ষ করবো। শ্বাদন্তের সুচারু কিনারা থেকে ঠিকরে শশীকিরণের অভিমুখ বদলে যাবার দৃশ্য আমি কখনো দেখিনি। এমনকি ছবিও না । সে ছবি যে তুলবো আমাদের দেশের রাতের রাস্তাগুলো অতো ভালো নয়। রাস্তাগুলো অবশ্য দিনের বেলাতেও যারপরনাই দশাহীন, দিশাহীন । এখানে রাস্তা তৈরি হয় পথ চলার থেকেও দখল হবার জন্যে বেশী এবং তার চেয়েও বেশী করে গর্ত হবার জন্যে, আরও আরও নোংরা হবার জন্যে। পাহাড়ের খাড়া ঢাল বেয়ে নদীস্রোত যেমন দুর্বার নেমে আসে উঁচু হিমবাহউপত্যকা থেকে, জন্মের অব্যবহিত পরে ; ঠিক তেমনি বিপুল ময়লাস্রোত নিয়ত রাস্তার দিকে ধাবিত হয় মানুষের জীবন এবং যাপনের আঁতুড়ঘর থেকে । দিবালোকের এই সামুহিক নোংরা রাস্তায় রাতে যোগ হয় বিষম নোংরা মানুষেরা ।
এমনিতে যাদের বসন , বেশ ভূষা ইত্যাদি নোংরা , যারা হতশ্রী, ভাষা যাদের কর্কশ অথচ আন্তরিক – তারা বস্তুতপক্ষে রাস্তারই অংশ । বাতিল সেলোফিন পেপার, জখম শোলার টুকরো , শালপাতার ঠোঙ্গা , ঠাণ্ডা পানীয়ের পরিত্যক্ত রিক্ত বোতলের মতোই । আমগাছে লুকনো বসন্তবৌরি পাখির মতোই মিশে থাকে তারা রাস্তার সঙ্গে । ভীষণরকম অবিচ্ছেদ্য এবং মানানসই ভাবেই ।
বেমানান মানুষের অপরিচ্ছন্নতা থাকে মস্তিষ্কে -মনে -হৃদয়ে, বাহ্যিক ততোটা নয় । তাদের নোংরামি থাকে অন্যের পা মাড়িয়ে যাওয়া বাইকের চাকায় , হাসপাতাল -পুলিশচৌকি -এজলাসের আউটডোরে অসহায়তার সুযোগে দেখানো অর্থহীন রোয়াবে , পাঁচিল টপকে পাশের বাড়ির উঠোনে গিয়ে পড়া ময়লার থলিতে , ইস্কুলের গেটের কাছে চায়ের স্টলে বিক্রি হওয়া মাদকের পুরিয়ায়, গলিরাস্তা বেমালুম বন্ধ করে পার্ক করা গাড়িতে , কাঁচা টাকার লোভে কচুকাটা করা অর্জুন গাছের বনে , সিমেন্ট ফেলে বুজিয়ে ফেলা হাঁসপুকুরে ………………… ।
রাস্তাটা ক্রমশঃ নোংরাতর হয়ে চলে । শ্বাদন্তে চন্দ্রগ্রহণ অধরাই থেকে যায় ।

Advertisements

About Anand Sehgal

A graduate researcher, A writer, A poet, A singer, A composer,An actor..............An artist by heart

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: